স্নাতকদের গবেষণার মানসিকতা তৈরি করতে হবে: ড. আরেফিন সিদ্দিক

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের উদ্বোধনী সেমিনার
সেমিনারে বক্তব্য দিচ্ছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

শিক্ষা-শিক্ষাঙ্গন ডেস্ক

দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে গবেষণা সংস্কৃতি গড়ে তোলার জন্য গবেষণা সংসদগুলোর যাত্রা শুরু হয়েছে, আর শিক্ষার্থীদের এই উদ্যোগ এবং তাদের কার্যক্রম প্রশংসনীয় বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও সেমিনারে গতকাল রোববার প্রধান অতিথির বক্তব্যে এই মন্তব্য করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে সংগঠনটি ‘প্রমোটিং আন্ডারগ্রাজুয়েট রিসার্চ কালচার: অ্যা নিউ এরা অব বরিশাল ইউনিভার্সিটি’ শিরোনামে সেমিনার আয়োজন করে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদ। এতে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ছাদেকুল আরেফিন।

অতিথিদের সাথে অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ বদরুজ্জামান ভূঁইয়া, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মো. মুহসিন উদ্দীন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য এবং গবেষণা সংসদের নবগঠিত কমিটি ঘোষণা করেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের প্রধান উপদেষ্টা ড. মো. খোরশেদ আলম এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এস এম সাদেক।

একজন ছাত্রী পুরস্কার গ্রহণ করছেন।

অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দীক বলেন, আমরা অনেকে অনেক কিছু করছি। কিন্তু এর মধ্যে সবচেয়ে বড় বিষয় হলো, আমরা গবেষণার মানসিকতা তৈরি করতে পারছি কিনা! এই জায়গায় আমাদের গবেষণা সংসদগুলো কাজটি করে যাচ্ছে। ২০১৬ সালে আমাদের তরুণরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এই কাজটি শুরু করেছিলো। যা এরই মধ্যে ১৮ বিশ্ববিদ্যালয়ে গড়ে উঠেছে এবং একযোগে কাজ করছে। তিনি বলেন, গবেষণাকে ভালোবাসাটা মুখ্য। গবেষণা সংসদের শিক্ষার্থীরা ভালোবেসেই কাজগুলো করে যাচ্ছে। তাদের যে আইডিয়া আছে সে আইডিয়াগুলো পরিচর্যা করছে এবং সমাজে বাস্তবায়ন করছে। এটি দেশের অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখবে।

শিক্ষার্থীরা ফুল দিয়ে বরণ করে নিচ্ছেন প্রধান অতিথি অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিককে।

এক বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, এ সময় তিনি তরুণ গবেষকদের এথিকস ঠিক রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেন, গবেষকদের বিনয়ের সাথে কথা বলা, উদার মনোভাব ধারণ করা এবং অন্যের আইডিয়ার ক্রেডিট দেওয়ার মনোভাব থাকতে হবে। ক্রেডিট দিতে যেন ভুল না করি আমরা। প্রত্যেকের মস্তিষ্কের চিন্তা তার নিজের সম্পদ। তাই এর ক্রেডিট দিতে হবে। এটা গবেষকের মূল বৈশিষ্ট্য হতে হবে। তিনি বলেন, প্রতিদিনই আমরা গবেষণা করছি। আমরা মূলত অ্যাকাডেমিক গবেষণা করি। গ্রামের গৃহবধূ যিনি সুস্বাদু রান্না করেন, তিনিও গবেষণা করেন। তার গবেষণা বাস্তব জীবন নিয়ে। তারা নিজের অজান্তেই গবেষণা করে ফেলছেন, যার মাঝে ভালোবাসা জড়িত। শিক্ষার্থীরাও ভালোবাসা নিয়ে কাজ করছে। তাদের এই উদ্যোগ অন্যদের উদ্বুদ্ধ করছে।। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, গবেষণা তোমরা করবে মানব সমাজের উন্নয়নের জন্য৷ দেশ ও বিশ্বের শান্তির জন্য গবেষণা করতে হবে।

সেমিনারে অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

আরেফিন সিদ্দিক আরও বলেন, প্রতিটি শিক্ষার্থী চিন্তার নায়ক। চিন্তা করতে হবে এবং নতুন নতুন জ্ঞান তৈরি করতে হবে। আর সে চিন্তা করার জন্য সময় দিতে হবে তরুণদের। শুধু জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার লক্ষ্য হতে পারে না। শিক্ষার লক্ষ্য হলো মানুষকে এগিয়ে নেওয়া। আমরা অনেক পড়ালেখা করছি। কিন্তু কতজন আমরা দেশকে ভালোবাসি, কতজন দেশকে নিয়ে ভাবি? শিক্ষার উদ্দেশ্য হতে হবে দেশ ও সমাজকে এগিয়ে নেওয়া। এই জায়গাটি নিয়ে গবেষণা সংসদের সদস্যরা কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা চাই আমাদের ছেলে মেয়েরা হীনমন্যতায় ভুগবে না যে, আমরা ওটা পাচ্ছি না এটা পাচ্ছি না। সকল সীমাবদ্ধতার মাঝে তোমরা ভালো কাজ করে যাবে-এটা আমাদের বিশ্বাস।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের নবগঠিত কমিটির নেটওয়ার্কিং অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স-এর সম্পাদক জেবা তাসনিম কারিমা’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে লোকপ্রশাসন বিভাগের চতুর্থবর্ষের শিক্ষার্থী কাজী নাভিদ নাসিফকে সভাপতি ও গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. আজম খানকে সাধারণ সম্পাদক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা হয়।

সেমিনারে অতিথি ও শিক্ষার্থীরা।

এরপর বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা বিষয়ে উপস্থাপনা প্রদান করেন নবগঠিত কমিটির সহ-সভপতি মো. হাসান শাহরিয়ার, গবেষণা সংসদ পরিচালিত স্নাতক গবেষণা বিষয়ে জরিপের ফলাফল উপস্থাপন করেন সহ-সভাপতি ফারহানা ইয়াসমিন। এরপর নতুন সদস্যদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। সবশেষে অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্য ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের নবগঠিত কমিটির সভাপতি কাজী নাভিদ নাসিফ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন গবেষণা সংসদের মডারেটরবৃন্দ, উপদেষ্টা এবং বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তাসহ গবেষণা সংসেদর নেতৃবৃন্দ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মিডিয়া পার্টনার হিসেবে সহযোগিতা করেছে সময় টিভি এবং চ্যানেল আই অনলাইন। আর ইভেন্ট পার্টনার ছিলো বরিশাল ইউনিভার্সিটি আইটি সোসাইটি।

এমবিএইচ/এসএস

স্নাতকদের গবেষণার মানসিকতা তৈরি করতে হবে: ড. আরেফিন সিদ্দিক

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের উদ্বোধনী সেমিনার
সেমিনারে বক্তব্য দিচ্ছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

শিক্ষা-শিক্ষাঙ্গন ডেস্ক

দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে স্নাতক পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে গবেষণা সংস্কৃতি গড়ে তোলার জন্য গবেষণা সংসদগুলোর যাত্রা শুরু হয়েছে, আর শিক্ষার্থীদের এই উদ্যোগ এবং তাদের কার্যক্রম প্রশংসনীয় বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও সেমিনারে গতকাল রোববার প্রধান অতিথির বক্তব্যে এই মন্তব্য করেন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান উপলক্ষে সংগঠনটি ‘প্রমোটিং আন্ডারগ্রাজুয়েট রিসার্চ কালচার: অ্যা নিউ এরা অব বরিশাল ইউনিভার্সিটি’ শিরোনামে সেমিনার আয়োজন করে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদ। এতে সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ছাদেকুল আরেফিন।

অতিথিদের সাথে অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ বদরুজ্জামান ভূঁইয়া, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ড. মো. মুহসিন উদ্দীন। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য এবং গবেষণা সংসদের নবগঠিত কমিটি ঘোষণা করেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের প্রধান উপদেষ্টা ড. মো. খোরশেদ আলম এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এস এম সাদেক।

একজন ছাত্রী পুরস্কার গ্রহণ করছেন।

অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দীক বলেন, আমরা অনেকে অনেক কিছু করছি। কিন্তু এর মধ্যে সবচেয়ে বড় বিষয় হলো, আমরা গবেষণার মানসিকতা তৈরি করতে পারছি কিনা! এই জায়গায় আমাদের গবেষণা সংসদগুলো কাজটি করে যাচ্ছে। ২০১৬ সালে আমাদের তরুণরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এই কাজটি শুরু করেছিলো। যা এরই মধ্যে ১৮ বিশ্ববিদ্যালয়ে গড়ে উঠেছে এবং একযোগে কাজ করছে। তিনি বলেন, গবেষণাকে ভালোবাসাটা মুখ্য। গবেষণা সংসদের শিক্ষার্থীরা ভালোবেসেই কাজগুলো করে যাচ্ছে। তাদের যে আইডিয়া আছে সে আইডিয়াগুলো পরিচর্যা করছে এবং সমাজে বাস্তবায়ন করছে। এটি দেশের অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখবে।

শিক্ষার্থীরা ফুল দিয়ে বরণ করে নিচ্ছেন প্রধান অতিথি অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিককে।

এক বিজ্ঞপ্তিতে জানা যায়, এ সময় তিনি তরুণ গবেষকদের এথিকস ঠিক রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেন, গবেষকদের বিনয়ের সাথে কথা বলা, উদার মনোভাব ধারণ করা এবং অন্যের আইডিয়ার ক্রেডিট দেওয়ার মনোভাব থাকতে হবে। ক্রেডিট দিতে যেন ভুল না করি আমরা। প্রত্যেকের মস্তিষ্কের চিন্তা তার নিজের সম্পদ। তাই এর ক্রেডিট দিতে হবে। এটা গবেষকের মূল বৈশিষ্ট্য হতে হবে। তিনি বলেন, প্রতিদিনই আমরা গবেষণা করছি। আমরা মূলত অ্যাকাডেমিক গবেষণা করি। গ্রামের গৃহবধূ যিনি সুস্বাদু রান্না করেন, তিনিও গবেষণা করেন। তার গবেষণা বাস্তব জীবন নিয়ে। তারা নিজের অজান্তেই গবেষণা করে ফেলছেন, যার মাঝে ভালোবাসা জড়িত। শিক্ষার্থীরাও ভালোবাসা নিয়ে কাজ করছে। তাদের এই উদ্যোগ অন্যদের উদ্বুদ্ধ করছে।। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, গবেষণা তোমরা করবে মানব সমাজের উন্নয়নের জন্য৷ দেশ ও বিশ্বের শান্তির জন্য গবেষণা করতে হবে।

সেমিনারে অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

আরেফিন সিদ্দিক আরও বলেন, প্রতিটি শিক্ষার্থী চিন্তার নায়ক। চিন্তা করতে হবে এবং নতুন নতুন জ্ঞান তৈরি করতে হবে। আর সে চিন্তা করার জন্য সময় দিতে হবে তরুণদের। শুধু জিপিএ-৫ পাওয়া শিক্ষার লক্ষ্য হতে পারে না। শিক্ষার লক্ষ্য হলো মানুষকে এগিয়ে নেওয়া। আমরা অনেক পড়ালেখা করছি। কিন্তু কতজন আমরা দেশকে ভালোবাসি, কতজন দেশকে নিয়ে ভাবি? শিক্ষার উদ্দেশ্য হতে হবে দেশ ও সমাজকে এগিয়ে নেওয়া। এই জায়গাটি নিয়ে গবেষণা সংসদের সদস্যরা কাজ করে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা চাই আমাদের ছেলে মেয়েরা হীনমন্যতায় ভুগবে না যে, আমরা ওটা পাচ্ছি না এটা পাচ্ছি না। সকল সীমাবদ্ধতার মাঝে তোমরা ভালো কাজ করে যাবে-এটা আমাদের বিশ্বাস।

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের নবগঠিত কমিটির নেটওয়ার্কিং অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স-এর সম্পাদক জেবা তাসনিম কারিমা’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে লোকপ্রশাসন বিভাগের চতুর্থবর্ষের শিক্ষার্থী কাজী নাভিদ নাসিফকে সভাপতি ও গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. আজম খানকে সাধারণ সম্পাদক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা হয়।

সেমিনারে অতিথি ও শিক্ষার্থীরা।

এরপর বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা বিষয়ে উপস্থাপনা প্রদান করেন নবগঠিত কমিটির সহ-সভপতি মো. হাসান শাহরিয়ার, গবেষণা সংসদ পরিচালিত স্নাতক গবেষণা বিষয়ে জরিপের ফলাফল উপস্থাপন করেন সহ-সভাপতি ফারহানা ইয়াসমিন। এরপর নতুন সদস্যদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। সবশেষে অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্য ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় গবেষণা সংসদের নবগঠিত কমিটির সভাপতি কাজী নাভিদ নাসিফ।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন গবেষণা সংসদের মডারেটরবৃন্দ, উপদেষ্টা এবং বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তাসহ গবেষণা সংসেদর নেতৃবৃন্দ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মিডিয়া পার্টনার হিসেবে সহযোগিতা করেছে সময় টিভি এবং চ্যানেল আই অনলাইন। আর ইভেন্ট পার্টনার ছিলো বরিশাল ইউনিভার্সিটি আইটি সোসাইটি।

এমবিএইচ/এসএস